চাঁদার দাবিতে দোকান ভাঙচুর, ছাত্রলীগের কমিটি স্থগিত

রংপুরের বেগম রোকেয়া বিশ্ববিদ্যালয়ের সামনে পার্কের মোড়ে শনিবার সকালে চাঁদা না পেয়ে একটি কনফেকশনারিতে হামলা চালিয়ে ব্যাপক ভাঙচুর করা হয়েছে। এ ঘটনার জের ধরে সন্ধ্যার পর থেকে এলাকাবাসী-ব্যবসায়ীদের সঙ্গে ছাত্রলীগ ও সাধারণ ছাত্রদের পাল্টাপাল্টি ধাওয়ার ঘটনা ঘটে।

এদিকে ওই হামলায় রোকেয়া বিশ্ববিদ্যালয় শাখা ছাত্রলীগের নেতা-কর্মীরা জড়িত বলে অভিযোগ উঠেছে। এ ঘটনায় বিশ্ববিদ্যালয় শাখা ছাত্রলীগের কমিটি স্থগিতের ঘোষণা দিয়েছে সংগঠনটির কেন্দ্রীয় কমিটি।

পুলিশ, প্রত্যক্ষদর্শী ও ক্ষতিগ্রস্ত দোকানের মালিক সূত্র জানায়, শনিবার সকাল আটটার দিকে পার্কের মোড় এলাকায় লিফা ফার্স্ট ফুড অ্যান্ড কনফেকশনারি খোলার পর ১০-১২ জনের একটি সংঘবদ্ধ দুর্বৃত্ত এক লাখ টাকা চাঁদা দাবি করে। দোকানের পক্ষ থেকে চাঁদা দিতে অস্বীকৃতি জানালে হামলা চালিয়ে দোকানের ফ্রিজসহ খাবারের কাচের আসবাবপত্র ব্যাপক ভাঙচুর করা হয়। বিষয়টি জানাজানি হলে সকাল নয়টার দিকে সেখানকার ব্যবসায়ীরা দোকান বন্ধ রেখে রংপুর-কুড়িগ্রাম মহাসড়ক অবরোধ করে বিক্ষোভ প্রদর্শন করেন। পরে পুলিশের আশ্বাসের পরিপ্রেক্ষিতে ব্যবসায়ীরা অবরোধ তুলে নিলে বেলা ১১টা থেকে যানবাহন চলাচল স্বাভাবিক হয়।

এদিকে ব্যবসায়ীদের অবরোধের প্রতিবাদে সন্ধ্যার পর ক্যাম্পাসে সাধারণ শিক্ষার্থীরা একটি বিক্ষোভ মিছিল বের করে। প্রত্যক্ষদর্শীরা জানান, মিছিলটি ক্যাম্পাস প্রদক্ষিণ করে ফটকের বাইরে গেলে উত্তেজনা ছড়িয়ে পড়ে। এ সময় ব্যবসায়ী ও এলাকাবাসীর সঙ্গে সাধারণ শিক্ষার্থী ও ছাত্রলীগের পাল্টাপাল্টি ধাওয়ার ঘটনা ঘটে। এ সময় একটি চায়ের দোকানে আগুন দেওয়ার ঘটনাও ঘটে। থেমে থেমে চলে ইটপাটকেল নিক্ষেপ। এতে যুগান্তর পত্রিকার ফটো সাংবাদিক উদয় চন্দ্র বর্মণসহ পাঁচজন আহত হন। এ ঘটনায় বিক্ষুব্ধ জনগণ রংপুর-কুড়িগ্রাম সড়ক অবরোধ করায় কুড়িগ্রাম ও লালমনিরহাটের সঙ্গে ঢাকাসহ দূরপাল্লার সকল ধরনের যানবাহন চলাচলও বন্ধ হয়ে যায়।

পার্কের মোড় দোকান মালিক সমিতির আহ্বায়ক এ কে এম মাসুদ রানা জানান, ২৪ ঘণ্টার মধ্যে পুলিশ প্রশাসন পার্কের মোড়ে হামলাকারীদের গ্রেপ্তারের আশ্বাস দেওয়ায় সকালের অবরোধ তুলে নেওয়া হয়। তিনি আরও বলেন, সন্ধ্যার পর ক্যাম্পাস থেকে ছাত্ররা মিছিল বের করলে এলাকাবাসী ও ব্যবসায়ীরা এক জোট হলে ধাওয়া-ধাওয়ার ঘটনা ঘটে।
লিফা ফার্স্ট ফুড অ্যান্ড-কনফেকশনারির মালিক মাজেদুল ইসলাম লাবলু অভিযোগ করেন, সকাল আটটায় ১০-১২ জন ছাত্র এক লাখ টাকা চাঁদা দাবি করে। এই টাকা দিতে অস্বীকৃতি জানানো হলে দোকানে হামলা চালিয়ে ব্যাপক ভাঙচুর করা হয়। দোকানের দুটি ফ্রিজ, শোকেসসহ প্রায় অনেক টাকার মালপত্র ক্ষতি হয় বলে দাবি করেন তিনি।
ছাত্রলীগ রোকেয়া বিশ্ববিদ্যালয় শাখা ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদক মাহমুদ হাসান দিনভর উদ্ভূত পরিস্থিতি নিয়ে সন্ধ্যা সাড়ে সাতটায় মুঠোফোনে প্রথম আলোকে বলেন, সকালে দোকান ভাঙচুরের ঘটনায় রাজনৈতিক ফায়দা নিতে চাচ্ছে একটি পক্ষ। তবে এই পক্ষটি কারা তা তিনি জানাননি। এ ঘটনারই জের ধরে সন্ধ্যার পর পাল্টাপাল্টি ধাওয়ার ঘটনা ঘটে।

কোতোয়ালি থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) এ বি এম জাহিদুল ইসলাম জানান, সকালের ঘটনায় খবর পেয়ে সেখানে পুলিশ পাঠানো হয়। পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে নিয়ে আনা হলেও সন্ধ্যার পর আবারও পাল্টাপাল্টি ধাওয়া ও সংঘর্ষ বাধে। সেখানকার পরিস্থিতি অনুকূলে আনতে চেষ্টা চালানো হচ্ছে।

ছাত্রলীগের কমিটি স্থগিত: সংগঠনের শৃঙ্খলাবিরোধী কর্মকাণ্ডে জড়িত থাকার অভিযোগে রংপুরের বেগম রোকেয়া বিশ্ববিদ্যালয় শাখা ছাত্রলীগের সব কার্যক্রম স্থগিত করা হয়েছে। পরবর্তী নির্দেশ না পাওয়া পর্যন্ত এই স্থগিতাদেশ বহাল থাকবে। ছাত্রলীগের কেন্দ্রীয় কমিটির সাধারণ সম্পাদক এস এম জাকির হোসাইন প্রথম আলোকে এ তথ্য নিশ্চিত করেছেন।

রোকেয়া বিশ্ববিদ্যালয়ের সামনে পার্কের মোড়ে কনফেকশনারিতে হামলার ঘটনা ঘটে। এ ঘটনায় ছাত্রলীগের জড়িত থাকার অভিযোগ উঠেছে। এরপর ছাত্রলীগের কমিটি স্থগিত করা হয়।
এদিকে এই ঘটনা তদন্তে কেন্দ্রীয় ছাত্রলীগ তিন সদস্যের তদন্ত কমিটি গঠন করেছে। কমিটির সদস্যরা হলেন: চন্দ্র শেখর মণ্ডল, শেখ জসিম উদ্দিন ও ইয়াজ আল রিয়াদ।

Post Author: Pritom Sagor

Leave a Reply