জার্মান চ্যান্সেলরের সঙ্গে রোহিঙ্গা ইস্যুতে আলোচনা করবেন প্রধানমন্ত্রী

স্বাধীন কন্ঠ ডেস্ক : নিরাপত্তা-সংক্রান্ত একটি আন্তর্জাতিক সম্মেলনে যোগ দিতে জার্মানি সফরে যাচ্ছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। আগামীকাল তার ঢাকা ছাড়ার কথা রয়েছে। পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয় সূত্রে এ তথ্য জানা গেছে।

সূত্র জানায়, ১৭-১৯ ফেব্রুয়ারি জার্মানির মিউনিখ শহরে অনুষ্ঠিত হচ্ছে মিউনিখ সিকিউরিটি কনফারেন্স-২০১৭। এতে অংশ নেবেন ৩০টির বেশি দেশের সরকারপ্রধান। সেই সঙ্গে প্রায় ৮০টি দেশের পররাষ্ট্র ও প্রতিরক্ষামন্ত্রীরা এ সম্মেলনে যোগ দেবেন। ফলে গুরুত্ব বিবেচনায় এতে অংশ নিচ্ছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। নিরাপত্তা সম্মেলনে অংশগ্রহণের পাশাপাশি জার্মান চ্যান্সেলর অ্যাঙ্গেলা মেরকেলের সঙ্গেও শেখ হাসিনার বৈঠকের কথা রয়েছে। বিষয়টি নিয়ে আজ সংবাদ সম্মেলন করবেন পররাষ্ট্রমন্ত্রী আবুল হাসান মাহমুদ আলী।

পররাষ্ট্রমন্ত্রী বলেন, ‘আগামী ১৮ ফেব্রুয়ারি দুই নেতার বৈঠক অনুষ্ঠিত হবে। বৈঠকে তারা রোহিঙ্গা শরণার্থী, বেক্সিট পরবর্তী অবস্থা, বৈশ্বিক সন্ত্রাসবাদ, উন্নয়ন, বাণিজ্য ও বিনিয়োগের বিষয়ে আলোচনা করবেন।’ তিনি আরও বলেন, ‘প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা আগামী ১৭ থেকে ১৯ ফেব্রুয়ারি পর্যন্ত মিউনিক সিকিউরিটি কনফারেন্সে যোগ দিতে জার্মানে অবস্থান করবেন।

রোহিঙ্গা বিষয়ে এক প্রশ্নের জবাবো পররাষ্ট্রমন্ত্রী বলেন, ‘রোহিঙ্গাদের এখনই ঠেঙ্গার চরে পাঠানো হবে না। সেখানে কাজ শুরু হয়েছে। অবকাঠামো উন্নয়নের পর তাদের সেখানে পাঠানো হবে।’ তিনি আরও বলেন, ‘কক্সবাজার আমাদের গুরুত্বপূর্ণ পর্যটন এলাকা। রোহিঙ্গাদের জন্য আমাদের সেখানে অনেক ক্ষতি হচ্ছে। রোহিঙ্গারা চিরকাল থাকবে না, তাদের মিয়ানমারে ফেরত পাঠানো হবে।’

এ সম্মেলনে জঙ্গিবাদের বিরুদ্ধে জিরো টলারেন্সের পরিষ্কার বার্তা দেবে বাংলাদেশ। সম্মেলনের সাইডলাইনে অন্যান্য সরকারপ্রধানের সঙ্গে প্রধানমন্ত্রীর বৈঠকের কথা রয়েছে।

জানা গেছে, পাঁচ দশকেরও বেশি সময় ধরে মিউনিখ সিকিউরিটি কনফারেন্স অনুষ্ঠিত হয়ে আসছে। এ সম্মেলনকে কেন্দ্র করে প্রতি বছরই নিরাপত্তা ইস্যুতে আন্তর্জাতিক সম্প্রদায়ের নেতারা জার্মানের মিউনিখ শহরে মিলিত হন। এ বছর অনুষ্ঠিত হচ্ছে সম্মেলনের ৫৩তম আসর। এবারের কনফারেন্সে ডোনাল্ড ট্রাম্পের নেতৃত্বে মার্কিন সরকার গঠনের পর আটলান্টিকের ওপারের ভবিষ্যত্ সম্পর্ক ও ন্যাটো নিয়ে আলোচনা হবে। এছাড়া ইউরোপীয় ইউনিয়নের (ইইউ) নিরাপত্তা ও প্রতিরক্ষা সহযোগিতা, ইউক্রেন সংকট এবং রাশিয়ার সঙ্গে সম্পর্ক, সিরিয়া যুদ্ধ, কোরিয়া পেনিনসুলাসহ এশীয় অঞ্চলে নিরাপত্তা পরিস্থিতির বিষয়টিও সম্মেলনের আলোচ্য সূচিতে রাখা হয়েছে। এর বাইরে সম্মেলনে অংশগ্রহণকারীরা জঙ্গিবাদ, তথ্যযুদ্ধের পাশাপাশি বৈশ্বিক স্বাস্থ্য ও জলবায়ু নিরাপত্তা নিয়েও আলোচনা করবেন।

প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা ও জার্মান চ্যান্সেলর অ্যাঙ্গেলা মেরকেল ছাড়াও এবারের সম্মেলনে যোগ দিচ্ছেন জাতিসংঘ মহাসচিব অ্যান্তোনিও গুতেরেস, ইউরোপীয় কাউন্সিলের প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড টাস্ক, ইইউর উচ্চপর্যায়ের প্রতিনিধি, ন্যাটোর মহাসচিব, ইউক্রেনের প্রেসিডেন্ট, আফগানিস্তানের প্রেসিডেন্ট, নরওয়ের প্রধানমন্ত্রী, হাঙ্গেরির প্রধানমন্ত্রী, ইরাকের প্রধানমন্ত্রী, চীনের পররাষ্ট্রমন্ত্রী, সৌদি আরবের পররাষ্ট্রমন্ত্রী, ইরানের পররাষ্ট্রমন্ত্রী, তুরস্কের প্রধানমন্ত্রী ও পররাষ্ট্রমন্ত্রী, রাশিয়ার পররাষ্ট্রমন্ত্রী ও ফ্রান্সের পররাষ্ট্রমন্ত্রী।

Post Author: shadhinkantho

Leave a Reply