প্রেমে সাড়া না দেয়ায় কিশোরীকে জোর করে কীটনাশক খাইয়ে হত্যার চেষ্টা!

কোটচাদপুর প্রতিনিধি : কোটচাঁদপুর উপজেলা ফাদিলপুর গ্রামে এক কিশোরীকে অপহরণের পর বিয়ের প্রস্তাবে রাজি না হওয়ায় জোর করে কীটনাশক খাইয়ে হত্যার চেষ্টা চালানোর অভিযোগ পাওয়া গেছে। সে বর্তমানে কোটচাঁদপুর উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি রয়েছে।

বিষক্রিয়ায় আক্রান্ত হয়ে রিমাকে মুমূর্ষু অবস্থায় কোটচাঁদপুর উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করা হয়। কিন্তু সেখানেও বিপত্তি রিমাকে উন্নত চিকিৎসায় যশোর ২৫০ বেড হাসপাতালে নেয়ার জন্য ডাক্তাররা পরামর্শ দিলেও অর্থাভাবে সেখানে নিতে পারছেন না তার হতদরিদ্র পিতা। কোটচাঁদপুর হাসপাতালে রিমা এখন জীবন-মৃত্যুর সন্ধিক্ষণে।

ঘটনাটি ঘটেছে বৃহস্পতিবার দুপুরে। ঘটনাটি ঘটেছে উপজেলার ফাদিলপুর গ্রামে। এ ঘটনায় এক মহিলাকে আটক করেছে পুলিশ।

কিশোরীর এক ফুফু জানান, ফাদিলপুর গ্রামের মৃত সিরাজ বিশ্বাসের নাতিছেলে নাজমুল হোসেন (১৮)-এর বাড়ী শৈলকূপা উপজেলার মির্জাপুর গ্রামে হলেও সে নানা বাড়ি ফাদিলপুর থাকে। ছেলেটি ভবঘুরে বখাটে প্রকৃতির। সে প্রায় তার ভাইজিকে উত্তাক্ত করতো।

হঠাৎ বুধবার রাত ৮টার দিকে নাজমুল ও তার বন্ধু আলমগীর হোসেন বাড়ির পাশে একা পেয়ে কিশোরীকে অপহরণ করে ওই গ্রামের একটি কাঁঠাল বাগানে নিয়ে যায়। সেখানে নাজমুলকে বিয়ে করতে বিভিন্ন ভাবে ভয় ভীতি দেখায়।

কোন কিছুতেই রিমা রাজি না হওয়াতে রাত ১টার দিকে বাড়ির পাশে তারা রেখে আসে। এ দিকে স্বজনরা তাকে খুজতে থাকে এক পর্যায়ে সে বাড়িতে যেয়ে ঘটনাটি খুলে বলে। বিষয়টি নিয়ে উভয় পরিবারের মধ্যে হাতাহাতি পর্যন্ত গড়ায়।

ফুফুর অভিযোগ, এ ঘটনার পরে বৃহস্পতিবার দুপুরের কিশোরীকে তার আরেক ফুফুর ঘরে ঘুমিয়ে থাকা অবস্থায় নাজমুল ও আলমগীর জোর করে কীটনাশক মুখের মধ্যে ঢেলে দিয়ে চলে যায়। বিষক্রিয়ায় সে ছটফট করতে থাকলে গ্রামেই পল্লী চিকিৎসক দিয়ে প্রথমে চিকিৎসা দেয়া হয়। পরে অবস্থার অবনতি হলে তাকে কোটচাঁদপুর হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে।

এ ব্যাপারে কোটচাঁদপুর থানা ইনচার্জ (ওসি) বিপ্লব কুমার সাহা বলেন, বিষয়টি মৌখিকভাবে শোনার পরপরই জিজ্ঞাসাবাদের জন্য নাজমুলের খালা রেশমা খাতুনকে থানায় আনা হয়েছে।

ওই গ্রামের ইউপি মেম্বার আকবর মোল্লা জানান, আমি আজ দুইদিন ঢাকাতে রয়েছি , তবে আমি শুনেছি নাজমুল নামে একটি ছেলে রিমাকে প্রতি নিয়ত বিরক্ত করতো। তবে আমাকে অপহরণের বিষয়টি রিমার পিতা জানিয়েছে। এর বেশি কিছু আমি জানিনা। বিষয়টি নিয়ে উভয় পক্ষ মারমুখি অবস্থানে রয়েছে বলে এলাকাবাসী জানিয়েছে।

Post Author: shadhinkantho

Leave a Reply